মধ্যরাতে মারধর : ছাত্রলীগের বিক্ষুদ্ধদের বিক্ষোভ

মধ্যরাতে মারধর : ছাত্রলীগের বিক্ষুদ্ধদের বিক্ষোভ

ছাত্রলীগের বিক্ষুদ্ধদের প্রতিবাদ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিতে অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন ছাত্রলীগের পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা। আজ সকাল থেকে তারা টিএসসির রাজু ভাষ্কার্যের সামনে অবস্থান নেন। নেতারা বলছেন, পদের ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর আশ্বাস না পেলে তারা অবস্থান কর্মসূচি চালিয়ে যাবেন।

এর আগে গতকাল ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ইস্যুতে বৈঠকে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিতে পদবঞ্চিতদের ওপর হামলার অভিযোগ উঠে। এতে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। শনিবার মধ্যরাতে এ ঘটনা ঘটে। এতে আগের কমিটির উপসম্পাদক শেখ আব্দুল্লাহর কলার বোন ভেঙে গেছে। লাঞ্ছিত হয়েছেন, ছাত্রলীগের রোকেয়া হল সভাপতি লিপি আকতারসহ ৬ জন। তবে ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীর দাবি, কথা কাটাকাটি ছাড়া অন্য কোনো ঘটনা ঘটেনি।। 

কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের জের ধরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিতে ছাত্রলীগের নারী নেত্রীদের ওপর আবারও হামলা ঘটনা ঘটেছে। এতে ছাত্রলীগের বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। তাদের অধিকাংশই পদবঞ্চিত নেতা। 

শনিবার রাত আড়াইটার দিকে এ ঘটনা ঘটে। পদবঞ্চিতদের ওপর হামলার ঘটনায় টিএসসির রাজু ভাস্কর্যের সামনে অবস্থান নেয় হামলার শিকার নেতাকর্মীরা। তাদের অভিযোগ, ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী এই হামলার  নেতৃত্ব দিয়েছেন।

পদবঞ্চিতদের অভিযোগ, রোকেয়া হল ছাত্রলীগ সভাপতি বিএম লিপি আক্তার, সুফিয়া কামাল হলের সাধারণ সম্পাদক সারজিয়া শারমিন চম্পা ও কেন্দ্রীয়  সংসদের উপ-সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক তিলোত্তমা শিকদারকে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী মারধর করেন।

এদিকে এ ঘটনার প্রতিবাদে রাজু ভাস্কর্যের সামনে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করেন লাঞ্ছিত নেত্রীরা ও পদবঞ্চিতরা। সেখানে তাদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে তোপের মুখে পড়েন কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আল আমিন রহমান বলেন, আমাদের সঙ্গে তারা বসেছিলেন। কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে রাব্বানী ভাই লিপি, সম্পা ও তিলোত্তমা আপুর গায়ে হাত তোলেন। আমরা এর নিন্দা জানাই। তিনি আরও বলেন, আমরা এ ঘটনার বিচার চাই। ছাত্রলীগের মেয়েদের আর কত মারধরের শিকার হতে হবে। 
 

ad