দু’পক্ষের উত্তেজনায় সিলেটের এমসি কলেজর ছাত্রাবাস বন্ধ ঘোষণা

দু’পক্ষের উত্তেজনায় সিলেটের এমসি কলেজর ছাত্রাবাস বন্ধ ঘোষণা

ছবি সংগৃহিত।

ছাত্রলীগের দু’পক্ষের গ্রুপিংয়ের জেরে সৃষ্ট উত্তেজনায় সিলেটের মুরারিচাঁদ কলেজের (এমসি) ছাত্রাবাস বন্ধ করে দিয়েছে কলেজ প্রশাসন। মঙ্গলবার সকালে ছাত্রাবাসে থাকা শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার স্বার্থে অধ্যক্ষ প্রফেসর নিতাই চন্দ্র চন্দ স্বাক্ষরিত এক নোটিশে অনির্দিষ্ট কালের জন্য ছাত্রাবাসটি বন্ধ করার ঘোষণা দেয়া হয়।  নোটিশে, মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টার মধ্যে ছাত্রাবাসে থাকা সকল শিক্ষার্থীদের হোস্টেল ত্যাগ করার বিষয়ে বলা হয় এবং পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত ছাত্রাবাস বন্ধ থাকবে বলেও জানানো হয়।

এ ব্যপারে কলেজে অধ্যক্ষ প্রফেসর নিতাই চন্দ্র চন্দ বলেন, ছাত্রাবাসে কিছুটা অস্থিরতা বিরাজ করছে। সেখানে থাকা সাধারণ শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে আপাতত ছাত্রাবাস বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। পরবর্তীতে কোন সিদ্ধান্ত হলে বিষয়গুলো জানিয়ে দেয়া হবে। গত কিছুদিন ধরে ছাত্রাবাসে বৈধ-অবৈধ বিষয়ে এমসি কলেজ ছাত্রলীগের দুটি পক্ষের মধ্যে কয়েক দফা সংঘর্ষ হয়। এমসি কলেজের বিষয়ে সরকারি কলেজের ছাত্রনেতাদের হস্তক্ষেপ কেন? মূলত এসব প্রশ্নের জেরে বহুদিন থেকেই দুটি পক্ষের মধ্যে একটা অস্থিরতা বিরাজ করছিল।

যার ফলস্বরূপ গত রাতে কলেজ ছাত্রাবাস ও বাইরে থাকা ছাত্রলীগের দুটি গ্রুপের নেতাকর্মীরা দেশীয় অস্ত্র সহকারে মহড়া দেয়। ঘটে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনাও। বৈধ-অবৈধ, বহিরাগতদের হস্তক্ষেপসহ আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দুটি পক্ষের এই অস্ত্রের মহড়ার ফলে কলেজ ছাত্রাবাসে এক অস্থিতিশীল পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। পরে কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর নিতাই চন্দ্র চন্দ, র‌্যাব-৯, শাহপরান থানা পুলিশসহ কলেজের শিক্ষকদের নিয়ে ছাত্রাবাসে গেলে পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হয়। পরে রাত ২টা পর্যন্ত বিবাদমান উভয়পক্ষের নেতকর্মীদের সঙ্গে কথা বলেও বিষয়টি সুরাহার চেষ্টা করলেও তা হয়নি। বর্তমানে ছাত্রাবাসটি আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর নিয়ন্ত্রণে আছে।

 

ad